শ্রীলঙ্কায় ফিরলেন ‘পলাতক’ সাবেক প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসে

শ্রীলংকার সাবেক প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসে দেশে ফিরেছেন গণবিক্ষোভের মুখে গত জুলাইয়ে দেশত্যাগ করে পালান। স্থানীয় সময় শুক্রবার দিবাগত রাত ১২টার পর সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে কলম্বোর অদূরে বন্দরনায়েক আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান তিনি। বিমানবন্দরে তাকে ফুল দিয়ে অভ্যর্থনা জানিয়েছেন দেশটির মন্ত্রী ও রাজনীতিকেরা।

বিবিসি, এএফপিসহ একাধিক আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত প্রায় সাত সপ্তাহ স্বল্পমেয়াদি ভিসা নিয়ে থাইল্যান্ডে অবস্থান করছিলেন গোতাবায়া। সেখান থেকে সিঙ্গাপুর হয়ে দেশে ফিরেন তিনি। এর আগে শ্রীলংকায় ব্যাপক গণবিক্ষোভের মুখে গত ১৩ জুলাইয়ের পর থেকে দেশের বাইরে অবস্থান করছিলেন সাবেক এই প্রেসিডেন্ট।

বন্দরনায়েক আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের একজন কর্মকর্তা বলেছেন, ওই বিমানবন্দর হয়েই গোতাবায়া রাজাপাকসে দেশে প্রবেশ করেন। গোতাবায়া যখন বিমানবন্দরে অবতরণ করেন তখন শ্রীলংকার মন্ত্রী ও রাজনীতিকদের একটি দল তাকে ফুল দিয়ে স্বাগত জানান।

গোতাবায়া উড়োজাহাজ থেকে বের হওয়ার সময় তাকে ফুলের মালা দেওয়ার জন্য ক্ষমতাসীন রাজনীতিকদের ভিড় লেগে যায় বলেও জানান বিমানবন্দরের এই কর্মকর্তা।

গোতাবায়ার দেশে ফেরার খবর নিশ্চিত করে শ্রীলংকার স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে, সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে গোতাবায়া দেশে ফেরেন।

কলম্বোর কেন্দ্রস্থলে তার জন্য একটি বাড়ি ঠিক করে রেখেছে সরকার। তবে বিমানবন্দর থেকে তাকে ওই বাড়িতে নাকি সামরিক কোনো স্থাপনায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

দেশটির প্রতিরক্ষা বাহিনীর একজন কর্মকর্তা বিবিসিকে বলেছেন, সাবেক প্রেসিডেন্ট হিসেবে তাকে নিরাপত্তা দেওয়া হবে।

এদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক প্রতিরক্ষা কর্মকর্তা এএফপিকে বলেছেন, গোতাবায়া রাজাপক্ষের জন্য সেনাবাহিনী ও পুলিশ সদস্যদের নিয়ে নতুন একটি নিরাপত্তাব্যবস্থা তৈরি করা হয়েছে।

চরম অর্থনৈতিক সংকটের প্রেক্ষাপটে এ বছরের শুরু থেকে শ্রীলংকায় বিক্ষোভ শুরু হয়। গত ৯ জুলাই শত শত বিক্ষোভকারী প্রেসিডেন্টের সরকারি বাসভবনে ঢুকে পড়েন। এর কিছুক্ষণ আগে সামরিক বাহিনীর সহযোগিতায় সেখান থেকে পালান গোতাবায়া রাজাপাকসে। এর কয়েক দিনের মাথায় তিনি দেশত্যাগ করেন।

গত ১৩ জুলাই শ্রীলংকা থেকে পালিয়ে প্রথম মালদ্বীপে যান গোতাবায়া। পরদিন ১৪ জুলাই তিনি মালদ্বীপ থেকে সিঙ্গাপুরে যান।

সিঙ্গাপুরে গিয়ে পদত্যাগপত্র দেশে পাঠিয়ে দেন গোতাবায়া। ১৫ জুলাই তার আনুষ্ঠানিক পদত্যাগের ঘোষণা দেন শ্রীলংকার পার্লামেন্টের স্পিকার।

সিঙ্গাপুরে পৌঁছানোর পর গোতাবায়াকে ১৪ দিনের স্বল্পমেয়াদি ‘ভিজিট পাস’ দেয় দেশটির অভিবাসন কর্তৃপক্ষ। পরে তার ভিজিট পাসের মেয়াদ আরও ১৪ দিন বাড়ানো হয়।
১১ আগস্ট তার পাসের মেয়াদ শেষ হলে থাইল্যান্ডের উদ্দেশে সিঙ্গাপুর ত্যাগ করেন তিনি। তখন থেকে থাইল্যান্ডেই ছিলেন গোতাবায়া।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.