সৌদি এয়ারলাইন্সের চাকরি হারাতে পারেন নাসিরের স্ত্রী তামিমা

সৌদিয়া এয়ারলাইন্সের ক্যাবিন ক্রুর চাকরি যে কোনো মুহূর্তে হারাতে পারেন জাতীয় দলের ‘ব্যাডবয়’ খ্যাত তারকা ক্রিকেটার নাসির হোসেনের সদ্য বিবাহিত স্ত্রী তামিমা সুলতানা তাম্মি।

তামিমাকে বিদেশ যাওয়া আটকাতে আইনি নোটিশ দেওয়া পর সংশ্লিষ্টদের বিশ্লেষণে এমন আশঙ্কা প্রকাশ করা হচ্ছে।

কেননা আন্তর্জাতিক এভিয়েশন অঙ্গনে সুনামের সঙ্গে যাত্রীসেবা দিয়ে যাওয়া সৌদিয়া এয়ারলাইন্সটি ক্রিমিনাল রেকর্ড রয়েছে এমন কর্মীকে রাখতে কখনোই আগ্রহী নয়। কর্মীদের সব রেকর্ড যাচাই বাছাই করেই সেবা অব্যহত রেখেছে এয়ারলাইন্সটি।

সেই মর্মে তামিমা এখন ফৌজদারি মামলার প্রধান আসামি। এমন আসামিকে স্বাভাবিকভাবেই চাকরিতে রাখতে চাইবে না সৌদিয়া এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ।

সম্প্রতি স্বামীকে ডিভোর্স না দিয়েই ক্রিকেটার নাসিরকে বিয়ে করেছেন মর্মে তামিমাকে প্রধান আসামি করে মামলা দায়ের হয়েছে। মামলাটি বর্তমানে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনে তদন্তাধীন।

এদিকে তামিমার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলার আবেদন করেছেন তার সাবেক স্বামী মো. রাকিব হাসান।

রোববার রাতে সামাজিক রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানায় যোগাযোগমাধ্যম ও গণমাধ্যমে মিথ্যাচার, বিষোদগার ছড়ানোর অভিযোগ এনে রাকিব এ মামলার আবেদন করেন। উত্তরা-পশ্চিম থানার ওসি আক্তারুজ্জামান ইলিয়াস গণমাধ্যমকে সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এসম মামলার নথিপত্র ইতোমধ্যে সৌদি এয়ারলাইনসকে সরবরাহ করে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন রাকিবের আইনজীবী ইশরাত হাসান।

তামিমার বিরুদ্ধে আদালতে করা মামলার বিচার সম্পন্ন না হওয়া পর্যন্ত চাকরির সুবাদে যাতে দেশ ত্যাগ করতে না পারেন সেজন্য সৌদি এয়ারলাইনস কর্তৃপক্ষকে পদক্ষেপ নিতে বলা হয়েছে সেই নোটিশে।

সূত্র জানিয়েছে, সৌদিয়া এয়ারলাইন্সের হেড অফিস সৌদি আরবে পৌঁছেছে তামিমার আমলনামা। সেখানকার হেড অব রিক্রুটমেন্ট বরাবর গত ১০ মার্চ ইস্যু করা চিঠিটি হাতে পেয়েছে এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ। চিঠির সঙ্গে প্রয়োজনীয় ৩ টি ডকুমেন্ট সংযুক্ত করা হয়েছে। যেখানে তামিমা সুলতানার পাসপোর্ট, ক্রিমিনাল রেকর্ড এবং এ সংক্রান্তে নিউজ কাটিং সংযুক্ত করা হয়েছে।

বাংলাদেশে হোটেল সোঁনারগাওয়ে অবস্থিত সৌদিয়া এয়ারলাইন্সের কান্ট্রি ম্যানেজার বরাবরও একই চিঠি ইস্যু করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.