সুইজারল্যান্ড বিমান যাত্রীদের বিবরণ নিবন্ধন করার পরিকল্পনা করছে

সন্ত্রাসবাদ ও অপরাধ মোকাবেলায় বিমান যাত্রীদের ব্যক্তিগত বিবরণ সম্বলিত একটি ডাটাবেস তৈরি করতে চায় সুইজারল্যান্ডের ফেডারেল সরকার। তবে প্রকল্পটি নিয়ে সুইজারল্যান্ডে তীব্র সমালোচনা হচ্ছে।

১১ সেপ্টেম্বর ২০০১ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সন্ত্রাসী হামলার পর দেশটির ফেডারেল সরকার যাত্রীদের ডেটা অ্যাক্সেসের দাবি করেছিল। গন্তব্য, নাম, পাসপোর্ট নম্বর, জন্ম তারিখ এবং অর্থপ্রদানের পদ্ধতি এমন সন্দেহজনক ভ্রমণকারীদের চিহ্নিত করতে কর্তৃপক্ষ ডাটাবেস তৈরি করে বিশ্লেষণ করতে ইচ্ছুক।

সুইজারল্যান্ডসহ অনেক দেশ একই ব্যবস্থা চালু করতে চায়। সুইজারল্যান্ডের ফেডারেল কাউন্সিল একটি জাতীয় রেজিস্টার এবং ডেটা বিশ্লেষণের জন্য একটি বিশেষ দল তৈরি করতে চায়।

জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ নতুন পদক্ষেপের দাবি করছে এবং ইইউ ইতোমধ্যে অনুরূপ আইন পাশ করেছে।

সুইজারল্যান্ডের বিভিন্ন সংসদ সদস্য এই ধারণাটিকে সমর্থন করে। অনেকের মতে, এমন একটি আইন, যা সন্ত্রাসবাদ ও অপরাধ দমনে সহায়তা করবে। এটি সন্দেহভাজন ব্যক্তির একটি বিবরণ সম্পূর্ণ করতে সাহায্য করতে পারে; যা একটি গুরুতর ঘটনা প্রতিরোধ করতে পারে।

তবে সুইস পিরাট পার্টির প্রধান জর্গো আনানিয়াদিস এ ধারণার বিপক্ষে। তার জন্য এটি সুইজারল্যান্ডে মৌলিক অধিকারের ক্ষতির জন্য নজরদারি বৃদ্ধির আরেকটি উদাহরণ। তিনি মনে করেন, অন্যান্য দেশে অনুরূপ কিন্তু আরো যুক্তিসঙ্গত ব্যবস্থা আছে। তার মতে ন্যূনতমভাবে আইনের পরিধি অবশ্যই ব্যাপকভাবে হ্রাস করতে হবে এবং অল্প সময়ের জন্য শুধুমাত্র সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সংগ্রহ করতে হবে।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.