ঢাকাকে বাসযোগ্য করতে অর্থসহায়তা দেবে বিশ্বব্যাংক

নদী দখলমুক্ত করে রাজধানী ঢাকা শহরকে বাসযোগ্য করে গড়ে তুলতে অর্থসহায়তা দেবে বিশ্বব্যাংক।

গত রোববার বিশ্বব্যাংকের দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের ভাইস প্রেসিডেন্ট মার্টিন রেইজারের সঙ্গে বৈঠক শেষে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এ কথা জানান।

তিনি বলেন, মুঘল আমলে ঢাকার চারপাশে নদী ছিল। ঢাকার চারপাশের নদীগুলোকে পুনরুদ্ধার করে শহরটিকে মুঘল আমলের চেহারা ফিরিয়ে দেয়া হবে। এ লক্ষ্যে নদী দখলমুক্ত করে ঢাকাকে বাসযোগ্য করে গড়ে তুলতে অর্থসহায়তা দেবে বিশ্বব্যাংক।

বৈঠকে বাংলাদেশ ও ভুটানের জন্য বিশ্বব্যাংকের নতুন কান্ট্রি ডিরেক্টর আবদুলাই শেককে পরিচয় করিয়ে দেয়া হয় বলে জানান অর্থমন্ত্রী।

আরো বলেন, ‘‌বিউটিফিকেশন অফ বাংলাদেশ’ নামে একটি প্রকল্পে ঋণ দিতে রাজি হয়েছে বিশ্বব্যাংক। এ বিষয়ে স্টাডি সম্পন্ন হয়েছে। কয়েকটি ভাগে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন হবে। এটি নিয়ে সরকারের উচ্চপর্যায়ে আলোচনা হয়েছে। এ প্রকল্পের অধীনেই ঢাকার চারপাশের নদীগুলো দখলমুক্ত করা হবে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, বিশ্বব্যাংক আমাদের অন্যতম উন্নয়ন সহযোগী। ১৯৭২ সাল থেকে এ পর্যন্ত বাংলাদেশকে ৩৭ বিলিয়ন ডলার ঋণ এবং অনুদান দিয়েছে। এর মধ্যে অর্থছাড় হয়েছে ২৬.৬ বিলিয়ন ডলার।

এ ছাড়া ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশে উন্নীত হওয়ার লক্ষ্যে বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশের সঙ্গে কান্ট্রি পার্টনারশিপ ফ্রেমওয়ার্ক (সিপিএফ) প্রস্তুত করেছে। এ বিষয়েও আলোচনা হয় বৈঠকে।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.