সিরিয়া ও লেবাননের সামরিক ঘাঁটিতে বিমান হামলা ইসরায়েলের

গাজায় হামাসের ওপর অব্যাহত হামলার জেরে পুরো মধ্যপ্রাচ্যে সংঘাত ছড়িয়ে পড়ার শঙ্কার মধ্যে ইসরায়েলের সামরিক বাহিনী বলেছে, তারা সিরিয়া ও লেবাননে সামরিক ঘাঁটিতে বিমান হামলা চালিয়েছে। লেবাননে হিজবুল্লাহর অবস্থান লক্ষ্য করে ইসরায়েলের যুদ্ধবিমান আঘাত হেনেছে। গতকাল সোমবার ইসরায়েলের সামরিক বাহিনীর বরাত দিয়ে আলজাজিরা এ খবর জানায়।

সিরিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় শহর দারার সামরিক বাহিনীর পোস্টগুলোর বাইরে আঘাত হেনেছে ইসরায়েলের বিমান। এতে প্রাণহানি না হলেও ‘জিনিসপত্রে’র ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। রোববার রাত দেড়টার দিকে অধিকৃত গোলান মালভূমির দিক থেকে এসে এসব বিমান দারার উপকণ্ঠে দুটি লক্ষ্যে আঘাত হানে।

এর আগেও ইসরায়েল লেবাননের সশস্ত্র সংগঠন হিজবুল্লাহর ওপর বিমান হামলা চালিয়েছে। সেই সঙ্গে সিরিয়ায় বিভিন্ন লক্ষ্যে হামলা হয়েছে। গাজায় ইসরায়েলের হামলার জেরে সম্প্রতি মধ্যপ্রাচ্যের সিরিয়া ও ইরাকে মার্কিন ঘাঁটিগুলোতে হামলা বেড়ে যায়। এর জেরে তারাও বিভিন্ন সশস্ত্র সংগঠনের অবস্থান লক্ষ্য করে হামলা চালাতে শুরু করে যুক্তরাষ্ট্র। গত বৃহস্পতিবার পেন্টাগনের পক্ষ থেকে জানানো হয়, সিরিয়ার ‘ইরানের রেভল্যুশনারি গার্ড সেনা’দের দুটি স্থাপনায় তারা বিমান হামলা চালিয়েছেন।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনি এরই মধ্যে ইসরায়েলকে সতর্ক করে বলেছেন, হামাসের ওপর তাদের অব্যাহত হামলা আঞ্চলিক সংঘাতে রূপ নিতে পারে। চলতি মাসের শুরুর দিকে তিনি বলেন, মুসলিম ও প্রতিরোধী বাহিনীর ধৈর্যচ্যুতি ঘটলে তাদের কেউ ঠেকাতে পারবে না।

গত সপ্তাহে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন সতর্ক করে বলেন, গাজায় ইসরায়েল বোমা হামলা বন্ধ না করলে সীমানা ছাড়িয়ে মধ্যপ্রাচ্যজুড়ে ছড়িয়ে পড়তে পারে সংঘাত। রোববার যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জ্যাক সুলিভান এবিসি নিউজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, আঞ্চলিক যুদ্ধে পরিণত হওয়ার প্রকৃত ঝুঁকি রয়েছে।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.