বাংলাদেশ বিমানের টিকিটের চড়া দাম, ভোগান্তিতে প্রবাসীরা

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের টিকিটের চড়া দাম, মালামাল হারানো আর শিডিউল বিপর্যয়ের ভোগান্তিতে সৌদিপ্রবাসী বাংলাদেশিরা। বিমানবন্দরে মিলছে না ফ্রি ইন্টারনেট সেবা।
অন্যদিকে কিছু অসাধু কর্মকর্তা ও একশ্রেণির ট্রাভেল এজেন্টের কারণে টিকিট পেতেও গুনতে হচ্ছে বাড়তি টাকা।
বাংলাদেশের অর্থনীতির বড় একটি অংশ আসে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স থেকে। অথচ দেশে আসা-যাওয়ার প্রায় প্রতিটি ক্ষেত্রে ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে সেই প্রবাসীদের।
রাষ্ট্রীয় বিমান সংস্থা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের টিকিটের উচ্চমূল্যের সঙ্গে আছে শিডিউল বিপর্যয় ও লাগেজ হারানোর মতো অভিযোগ।

শিডিউল বিপর্যয়ের বিষয়ে ট্রাভেল এজেন্সিগুলোর দাবি, বিমানের সময়সূচি পরিবর্তনের বিষয়টি যাত্রীদের জানানো সম্ভব হয় না।
আর এ কারণেই বিমানবন্দরে আসার পর সমস্যায় পড়েন যাত্রীরা।

ট্রাভেল এজেন্সি-সংশ্লিষ্ট একজন বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পাসপোর্ট নম্বরের মাধ্যমে বিমানবন্দরে ফ্রি ইন্টারনেট সেবা দেওয়া হলেও বাংলাদেশে এখনো এ ধরনের ব্যবস্থা করা হয়নি।
প্রবাসীরা দেশে ফেরার পর বিমানবন্দরে ফ্রি ইন্টারনেট সেবা পেতে অনেকেই পড়েন ভোগান্তিতে।
ইন্টারনেট সংযোগ পেতে একটি বাংলাদেশি মোবাইল নম্বর চাওয়া হয় ওটিপি বা ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড পাওয়ার জন্য।
তবে দীর্ঘদিন প্রবাসে কাটানো ব্যক্তিদের কাছে দেশি মোবাইল নম্বর না থাকায় সেই সেবা থেকেও তারা বঞ্চিত হন।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.