ইয়েমেনে হুথিদের লক্ষ্যবস্তুতে আবারও মার্কিন হামলা

ইয়েমেনের সশস্ত্র হুথি গোষ্ঠীকে লক্ষ্য করে নতুন হামলা চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন মালিকানাধীন একটি জাহাজে হামলার পর যুক্তরাষ্ট্র এই হামলা চালায়।
এর আগে অবশ্য ইরানপন্থি এই সশস্ত্র গোষ্ঠীকে আবারও ‘বৈশ্বিক সন্ত্রাসী সংগঠন’ হিসেবে ঘোষণা করা হবে বলে ঘোষণা দেয় ওয়াশিংটন।

আজ বৃহস্পতিবার (১৮ জানুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র বুধবার ইয়েমেনে হুথিদের লক্ষ্যবস্তুতে আরেক দফা হামলা চালিয়েছে বলে মার্কিন কর্মকর্তারা রয়টার্সকে জানিয়েছেন। কর্মকর্তারা নাম প্রকাশ না করার শর্তে এ কথা জানিয়েছেন এবং ঠিক কোন লক্ষ্যবস্তুতে হামলা হয়েছে বা কতটি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করা হয়েছে তার বিশদ বিবরণ দেননি তারা।

এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের মালিকানাধীন জাহাজে আবারও হামলা চালায় ইয়েমেনের সশস্ত্র গোষ্ঠী হুথি। সশস্ত্র এই গোষ্ঠীটি বলেছে, তারা ‘জেনকো পিকার্ডি’ নামের একটি বাল্ক ক্যারিয়ারকে লক্ষ্য করে ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে এবং সেটি লক্ষ্যবস্তুতে ‘সরাসরি আঘাত’ হানে। মার্কিন সেনাবাহিনী বলছে, বুধবার সন্ধ্যায় ওই জাহাজটিতে ড্রোন হামলা হয়েছে।

এদিকে ইয়েমেনের ইরানপন্থি সশস্ত্র গোষ্ঠী হুথি বিদ্রোহীদের ‘সন্ত্রাসী সংগঠন’ হিসেবে ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। হুথিদের নতুন এই উপাধির জন্য মার্কিন আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে হুথি তহবিল স্থগিত করতে হবে এবং গোষ্ঠীটির সদস্যদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ থেকে নিষিদ্ধ করা হবে।

লোহিত সাগরে ইসরায়েল সংশ্লিষ্ট সব জাহাজকে লক্ষ্যবস্তু করছে সশস্ত্র গোষ্ঠী হুথি। এর জেরে ইরান-সমর্থিত এই গোষ্ঠীর অবস্থানে দফায় দফায় হামলা চালাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। এমন অবস্থায় ফিলিস্তিনের গাজার বাইরেও নতুন করে যুদ্ধ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে।

ফিলিস্তিনি স্বাধীনতাকামী গোষ্ঠী হামাস এবং ইসরায়েলের যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে ওই অঞ্চলে সংঘাত ছড়িয়ে পড়ার ক্রমবর্ধমান ঝুঁকি তৈরি হয়েছে। ওই অঞ্চলে যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম বিরোধী ইরানের মিত্ররাও লেবানন, সিরিয়া এবং ইরাক থেকে মার্কিন স্বার্থকে লক্ষ্যবস্তু বানানোয় এতে নতুন করে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে।

এর মাঝেই হুথিদের সাথে যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিদমা জোটের হামলা-পাল্টা হামলার ঘটনায় ব্যাপক উদ্বেগ বৃদ্ধি পেয়েছে। গত নভেম্বর থেকে এই অঞ্চলে জাহাজে ইরান-মিত্র হুথি মিলিশিয়াদের হামলা এশিয়া ও ইউরোপের মধ্যে বাণিজ্যকে অনেকটা ধীর করে দিয়েছে এবং বড় শক্তিগুলোকেও তারা শঙ্কিত করেছে।

উল্লেখ্য, ইসরায়েলি আগ্রাসন শুরুর পর থেকে গত প্রায় তিন মাস ধরে লোহিত সাগরে ইসরায়েল সংশ্লিষ্ট ও ইসরায়েলগামী জাহাজে অব্যাহতভাবে হামলা চালিয়ে আসছে হুথি বিদ্রোহীরা।

ইরান সমর্থিত সশস্ত্র এই গোষ্ঠী জানিয়েছে, যতদিন গাজায় ইসরায়েলের বর্বরতা চলবে ততদিন তারা হামলা চালিয়ে যাবে।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.