ড্রোন কাণ্ডে উড়োজাহাজের টিকিটের দাম ৩শ ডলার ছাড়াচ্ছে

ড্রোন কাণ্ডে উড়োজাহাজের টিকিটের দাম ৩শ ডলার ছাড়াচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রের একটি গোয়েন্দা ড্রোন গত সপ্তাহে ইরান গুলি করে ভূপাতিত করায় সেই অঞ্চলে নতুন করে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে। এই উত্তেজনার কারণে বিপদের মুখে পড়েছে ওমান সাগর ও হরমুজ প্রণালি দিয়ে চলাচলকারী বাণিজ্যিক ফ্লাইটগুলো।

ওমান সাগর ও হরমুজ প্রণালির দিয়ে চলাচলকারী প্লেনগুলো পুনরায় রুট বিন্যাস করার কারণে ফ্লাইট খরচ বাড়তে পারে ৩০০-৪০০ ডলার বলে জানিয়েছে অ্যাভিয়েশন সংস্থাগুলো।

বৃহস্পতিবার (২০ জনু) ইরানে মার্কিন ড্রোন ভূপাতিত হওয়ার পর ভারত ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের এয়ারলাইন্স কোম্পানিগুলো তাদের বাণিজ্যিক রুটের ফ্লাইটের গতিপথ পরিবর্তনের ঘোষণা দেন। এতে করে প্লেন ভাড়া অতিরিক্ত ৩০০ থেকে ৪০০ ডলার বেড়ে যাবার কথাও জানান তারা।

দুবাইভিত্তিক অ্যাভিয়েশন সংস্থা এমিরেটস এয়ারলাইন্সের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাণিজ্যিক এয়ারলাইন্সগুলোর নিরাপত্তার প্রশ্নে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। পূর্ব সতর্কতামূলক পরিস্থিতি এড়িয়ে চলতে প্লেনের সব ফ্লাইটগুলো হরমুজ প্রণালি ও ওমান সাগর এড়িয়ে চলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

অ্যাভিয়েশন বিশেষজ্ঞরা জানান, ফ্লাইটের গতিপথ পরিবর্তন করায় অ্যাভিয়েশন সংস্থাগুলোর উপর বড় ধরনের অর্থনৈতিক চাপ পড়বে। হরমুজ প্রণালি এবং ওমান উপসাগরের উপকূল দিয়ে চলাচল করা ফ্লাইটের গতিপথ পরিবর্তনের ফলে যাত্রীদের গন্তব্যে পৌঁছাতে অতিরিক্ত ১ ঘণ্টা সময় বেশি লাগবে। টিকিটের মূল্য কমপক্ষে ৩০০ থেকে ৪০০ ডলার পর্যন্ত বাড়তে পারে।

তারা আরও জানান, বিমান সংস্থাগুলোর জন্য এটি হুমকি স্বরূপ। একটা বিরাট আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে যাচ্ছে। বেশ কয়েকটি ফ্লাইটকে গতিপথ পরিবর্তন করতে হবে।

ভারতের অ্যাভিয়েশন বিশেষজ্ঞ মোহন রঙ্গনাথ বলেন, ফ্লাইট পরিবর্তনের অর্থনৈতিক ক্ষতি মারাত্মক। ফুয়েলের খরচ বাড়বে। কেবিন ক্রুদের অতিরিক্ত সময় তাদেরকে ক্লান্ত করবে অন্য শিডিউলগুলোর বিপর্যয় ঘটাবে।

সূত্রঃ বার্তা২৪.কম

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.