অনুমতি ছাড়া অমিতাভ বচ্চনের নাম ছবি ও কণ্ঠস্বর ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা

বলিউডের অন্যতম সেরা মেগাস্টার অমিতাভ বচ্চন। ভারত ছাড়াও বিশ্বের বিভিন্ন দেশে তার অসংখ্য ভক্ত। তবে যে যত বড় ভক্তই হোন, যেখানে সেখানে অমিতাভ বচ্চনের নাম ব্যবহার বা ছবি আর লাগিয়ে রাখা যাবে না।

এমন অনেকেই আছেন, যাঁরা পরিচিতি পেয়েছেন অমিতাভ বচ্চনের কণ্ঠ নকল করে। তাঁর অঙ্গভঙ্গি, তাঁর অভিনয়ের ধরন অনুকরণ করে স্টেজ মাতান অনেক শিল্পী। তবে সেসব ‘মিমিক’ শিল্পীদের জন্য দুঃসংবাদ—আর নকল করা যাবে না অমিতাভ বচ্চনকে।

এখন আর অনুমতি ছাড়া অমিতাভ বচ্চনের নাম, ছবি ও ভয়েস ব্যবহার করা যাবে না। এই বর্ষীয়ান অভিনেতার আবেদন আমলে নিয়ে দিল্লির হাইকোর্ট শুক্রবার এ বিষয়ে রুল জারি করেছে।

হাইকোর্টের আদেশ অনুসারে, অমিতাভ বচ্চনের অনুমতি ছাড়া তার ছবি, নাম অথবা কণ্ঠস্বর কোনোরকম ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা যাবে না। পাশাপাশি, তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় থেকে শুরু করে টেলিকম পরিষেবা প্রদানকারীদেরও এই ধরনের যা কিছু বাজারে রয়েছে সে সব তুলে নিতে আদেশ দেওয়া হয়েছে। অমিতাভের ‘পার্সোনালিটি রাইটস’ কে রক্ষা করতেই এই পদক্ষেপ।

দিল্লি হাইকোর্টের বিচারপতি নবীন চাওলা জানিয়েছেন, অমিতাভ বচ্চন একটা সুপরিচিত নাম। আর তাই বিভিন্ন বিজ্ঞাপনী সংস্থা ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে তার নাম, ছবি বা কন্ঠস্বর হামেশাই ব্যবহার করে থাকে। এর সবটা যে তার অনুমতি নিয়ে করা হয় এমনটা নয়। আর এই বেআইনি ব্যবহারেই ক্ষুব্ধ অমিতাভ। তার স্পষ্ট বক্তব্য, তিনি ‘ব্যবহার হতে’ চান না।

বিগ বির পক্ষে আদালতে উপস্থিত ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী হরিশ সালভে। তিনি বলেন, ‘তাকে নিয়ে যা হচ্ছে তার একটা ধারণা দেই। কেউ টি-শার্ট বানিয়ে তার মুখ লাগাতে শুরু করেছে। কেউ তার পোস্টার বিক্রি করছে। কেউ আবার অমিতাভ বচ্চন ডটকম নামে ডোমেইন রেজিস্ট্রার করেছে। এই কারণেই আমরা আদালতে এসেছি।’

উল্লেখ্য, নিজের নাম, ছবি ও কণ্ঠস্বর এবং তার ব্যক্তিত্বের বৈশিষ্টাবলি বিশ্বব্যাপী রক্ষা করার জন্য কয়েক দিন আগে দিল্লীর আদালতে এই আবেদন করেন ৮০ বছর বয়সী অমিতাভ। এছাড়া বই প্রকাশক, টি-শার্ট বিক্রেতা এবং অন্যান্য বিভিন্ন ধরনের ব্যবসার ক্ষেত্রেও নিষেধাজ্ঞা চেয়ে আবেদন করেছেন ভারতীয় এই অভিনেতা।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.