সাক্ষাৎকার দিয়ে গেলেন ডোমিঙ্গো

সাক্ষাৎকার দিয়ে গেলেন ডোমিঙ্গো।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান সোমবার জানিয়েছেন, ১০-১২ দিনের মধ্যেই জাতীয় দলের জন্য নতুন প্রধান কোচ নিয়োগ দেয়া হবে। দু’দিন না যেতেই তার প্রমাণ মিলল।
বাংলাদেশ দলের কোচ হওয়ার দৌড়ে সবার আগে ঢাকায় এসে সাক্ষাৎকার দিয়ে গেলেন দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো। কোচের পদে প্রার্থী রয়েছেন আরও তিনজন।
বোর্ড সরাসরি না বললেও একটি বিশ্বস্ত সূত্র জানিয়েছে, সেই তিনজনের একজন হলেন বাংলাদেশের সাবেক কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। বাকি দু’জন ঈদের আগেই বিসিবির কাছে সাক্ষাৎকার দিয়ে যাবেন।
কাল বিসিবির মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুসও জানালেন, সভাপতির ঘোষণা অনুযায়ী নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই নতুন কোচ নিয়োগ দিতে পারবে বোর্ড।
বাংলাদেশ দলের কোচ হওয়ার জন্য সাক্ষাৎকার দিতে বুধবার সকালে ঢাকায় আসেন দক্ষিণ আফ্রিকার ডোমিঙ্গো। দুপুরের পর তিনি ধানমণ্ডিতে বেক্সিমকোর কার্যালয়ে বিসিবি সভাপতি ও অন্য পরিচালকদের কাছে সাক্ষাৎকার দেন।
ডোমিঙ্গো ২০২০ টি ২০ বিশ্বকাপ ও ২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপ নিয়ে আলাদা দুটি পরিকল্পনা উপস্থাপন করেন। এছাড়া বাংলাদেশকে নিয়ে তার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার কথাও জানান। কোচের পরিকল্পনায় সন্তুষ্ট পরিচালকরা।
তবে বোর্ডের বাছাই করা অপর তিন প্রার্থীর মধ্যে নতুন দু’জনের সাক্ষাৎকার নিয়ে তবেই চূড়ান্ত নাম ঘোষণা করবে বিসিবি। আর হাথুরুসিংহের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলে নিয়েছে বিসিবি।
কাল ডোমিঙ্গোর সঙ্গে সাক্ষাৎকার শেষে বোর্ড পরিচালকরা নিজেদের মধ্যে একদফা আলোচনা সেরে নেন।
সন্ধ্যায় জালাল ইউনুস বলেন, ‘আমাদের হাতে তিনজন কোচ রয়েছেন। আজ (বুধবার) রাসেল ডোমিঙ্গো সাক্ষাৎকার দিয়ে গেছেন। বাকিরা তিন-চারদিনের মধ্যে এসে দেখা করবেন। বাকিরা কারা বা কবে আসবেন সেটা এখনই আপনাদের জানাব না আমরা।’
তিনি বলেন, ‘তিনি একটা প্রস্তাবনা দিয়েছেন। আমরা শুনেছি, বাংলাদেশের ক্রিকেট নিয়ে কী চিন্তা করেন, কীভাবে নিজেকে প্রয়োগ করবেন। পারফরম্যান্স কীভাবে হবে এসব। তার উপস্থাপনা সন্তোষজনক।’
ডোমিঙ্গো ২০১২ সালের ডিসেম্বর থেকে ২০১৩ সালের আগস্ট পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকার টি ২০ দলের কোচের দায়িত্ব পালন করেন। তিনি কখনও পেশাদার ক্রিকেট খেলেননি। তবে ৪৪ বছর বয়সী এই দক্ষিণ আফ্রিকান মাত্র ২২ বছর বয়স থেকে কোচিং পেশায় যুক্ত।
তার উপস্থাপনা পছন্দ হলেও এখনই তাকে নিয়োগ দিচ্ছে না বোর্ড। মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান বলেন, ‘তার কথায় আমরা সন্তুষ্ট। কিন্তু আমাদের হাতে আরও দু’জন কোচ আছেন। এই তিনজনের মধ্য থেকেই একজনকে বেছে নেব।’
বাকি দুই কোচের সাক্ষাৎকার ঈদের আগেই শেষ করে ফেলবে বিসিবি। এ প্রসঙ্গে জালাল ইউনুস বলেন, ‘ঈদের আগেই কোচ নিয়োগের প্রক্রিয়া শেষ করার চেষ্টা করব। সব মিলিয়ে আমরা ১০-১২ দিনের মধ্যেই কোচ নিশ্চিত করতে পারব।’
ডোমিঙ্গোর প্রশংসা করে তিনি বলেন, ‘তিনি খুবই পেশাদারি কোচ। দক্ষিণ আফ্রিকা দলের সঙ্গে অনেকদিন জড়িত ছিলেন। তিনি অবশ্যই কোচ হওয়ার যোগ্য।’
বাংলাদেশের কোচ হওয়ার জন্য অনেকেই আবেদন করেছিলেন। বিসিবি তাদের মধ্য থেকে তিনজনের সংক্ষিপ্ত তালিকা করেছে।
জালাল ইউনুস বলেন, ‘আমাদের হাতে অনেক কোচ ছিলেন। কিন্তু সবাই তো কোয়ালিফাই করেন না। এর মধ্যে কয়েকটা দেশে যারা কোচিং করেছেন এমন ব্যক্তিও ছিলেন। কিন্তু আমরা তাদের এখনও আমাদের দলের জন্য যথোপযুক্ত মনে করছি না।’
দক্ষিণ আফ্রিকার চার্ল ল্যাঙ্গেভেল্টকে পেস বোলিং কোচ এবং নিউজিল্যান্ডের ড্যানিয়েল ভেট্টোরিকে স্পিন বোলিং পরামর্শক হিসেবে নিয়োগ দেয়া হলেও প্রধান কোচের পদটি এখনও খালি পড়ে আছে।

আরও খবর
Loading...