সেল্ফ-আইসোলেশন নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রধানমন্ত্রী ও চ্যান্সেলরের ইউটার্ন

সেল্ফ-আইসোলেশন নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রধানমন্ত্রী ও চ্যান্সেলরের ইউটার্ন। ব্রিটিশ স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাজিদ জাভিদের করোনা শনাক্ত হওয়ায় তার সংস্পর্শে থাকার কারণে স্বাভাবিকভাবেই এখন সেল্ফ-আইসোলেশনে থাকতে হবে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিশ জনসন ও চ্যান্সেলর রিশি সুনাককে।

বিরোধী লেবার পার্টি নেতা স্যার কেইর স্টারমার বলেন, ‘আমরা যে নিয়ম অনুসরণ করছি প্রধানমন্ত্রী এবং চ্যান্সেলরের জন্য সেগুলো প্রযোজ্য নয়’ এমনটা মনে করে তারা ফের অজ্ঞানতার পরিচয় দিয়েছেন।

তবে আইসোলেশনে না থেকে পাইলট পরিকল্পনার অংশ হিসেবে প্রতিদিন কভিড পরীক্ষা করিয়ে তারা দৈনন্দিন কার্যক্রম পরিচালনার কথা জানালে এ নিয়ে বিতর্কের সৃষ্টি হয়। খবর বিবিসি।

এ নিয়ে সমালোচনায় দেশটির বিরোধী দল বলছে, এই সিদ্ধান্তের মানে হচ্ছে তাদের জন্য এক নিয়ম এবং আমাদের বাকি সবার জন্য আলাদা নিয়ম।

ডাউনিং স্ট্রিট বলছে, বরিস জনসন চেকার্স (যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রীর কাউন্ট্রি হাউস) থেকে দূরে বসে মিটিং পরিচালনা করবেন।

অন্যদিকে চ্যান্সেলর রিশি সুনাক এ নিয়ে এক টুইটে বলেন, যদিও জরুরিভিত্তিতে কভিড পরীক্ষা ও শনাক্তের বিষয়টি অনেকটাই অনিশ্চিত, এজন্য সরকারি গুরুত্বপূর্ণ কাজের ক্ষেত্রে আমি সমর্থন করি যে সবার জন্য আইন এক রকম না হওয়ার বিষয়টি ভুল নয়।

 

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.