বিশ্বকাপের পরও খেলা চালিয়ে যাবেন মাশরাফি

বিশ্বকাপের পরও খেলা চালিয়ে যাবেন মাশরাফি।

বিশ্বকাপের উদ্দেশে দেশ ছাড়ার আগে বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা জানিয়েছিলেন এটাই হতে যাচ্ছে তার শেষ বিশ্বকাপ। বয়স ৩৫, সেই হিসেবে সবাই এই বিষয়টি আগে থেকেই অনুমান করে রেখেছিল। কিন্তু সকলের মধ্যেই কৌতূহল কাজ করছিল, বিশ্বকাপ শেষেই অবসরের ডাক দেবেন কিনা মাশরাফি! কেননা টাইগার অধিনায়ক এ ব্যাপারে নির্দিষ্ট করে কখনো কিছু জানাননি।

এবারের বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত ৬ ম্যাচ খেলে মাত্র ১টি উইকেট পেয়েছেন মাশরাফি। বোলিংয়ে আগের সেই ধাঁর নেই। সেই সঙ্গে প্রত্যাশা মাফিক বলও করতে পারেননি তিনি। তাই গুঞ্জন, বিশ্বকাপ শেষে দেশে ফিরেই অবসরের ঘোষণা দেবেন মাশরাফি। বয়স, ফিটনেস আর সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স ছাড়াও বর্তমানে জাতীয় সংসদের নির্বাচিত সংসদ সদস্য তিনি। মূলত রাজনৈতিক জীবনে মনোনিবেশ করার জন্যই ক্যারিয়ারের ইতি টানবেন বলে শোনা যাচ্ছিল।

তবে সব গুজবের মুখে টুটি চেপে ধরলেন মাশরাফি নিজেই। বিশ্বকাপে বাংলাদেশে পরের ম্যাচ ২ জুলাই। তাই ছুটিতে আছে পুরো টাইগার স্কোয়াড। ছুটিতে থাকা অবস্থায় ক্রিকেটভিত্তিক জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ক্রিকইনফোকে বাংলাদেশ দলপতি জানান, অবসরের ব্যাপারে এখনো কিছুই ভাবছেন না তিনি।

তিনি বলেন, ‘হ্যাঁ এটাই আমার শেষ বিশ্বকাপ, তবে টুর্নামেন্ট শেষে আমি অবসর নেবো না। আর এখনো টুর্নামেন্ট চলছে। সুতরাং, এই মুহূর্তে আমি অবসরের ব্যাপারে কিছু ভাবছিও না। ওটা খুব কঠিন একটা সময়। মানুষ অবসর নেয়ার সময় আবেগপ্রবণ হয়ে পড়ে।’

তবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) চাইলে অবসর নেয়ার বিষয়টি ভেবে দেখবেন বলে জানিয়েছেন মাশরাফি। বাংলাদেশ অধিনায়ক বলেন, ‘যদি বোর্ডের পক্ষ থেকে কোনো নির্দেশনা থাকে, তবে আমি সেটি নিয়ে ভাববো।’

মাশরাফির ব্যাপারে বিসিবির অবশ্য এতো তাড়া নেই! অবসর বিষয়ে মাশরাফির যেকোনো সিদ্ধান্তকে বিসিবি সম্মান জানাবে বলে জানিয়েছেন বোর্ড পরিচালক জালাল ইউনুস, ‘সে দারুণভাবে দলকে নেতৃত্ব দিচ্ছে। সুতরাং, আমরা এখন এই বিষয় নিয়ে ভাবছি না। সিদ্ধান্ত তার উপরই। সে কি খেলা চালিয়ে যাবে, দলকে নেতৃত্ব দেবে, নাকি দেবে না, আমরা বল তার কোর্টেই ছেড়ে দিয়েছি।’

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.