কানাডায় ছুরি হামলার ঘটনা ভয়ঙ্কর ও হৃদয়বিদারক: ট্রুডো

কানাডার সাচকাচুয়ান প্রদেশে হামলার ঘটনা নিয়ে কথা বলেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। কেন্দ্রীয় সাস্কাচেওয়ান প্রদেশে অতর্কিত ছুরি হামলায় কমপক্ষে ১০ জন নিহত হওয়ার ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো।  ‘এ হামলা ভয়ংকর ও হৃদয়বিদারক।’ খবর এএফপির। এক টুইটে ট্রুডো বলেছেন, ‘যাঁরা এই হামলায় প্রিয়জন হারিয়েছেন ও যাঁরা আহত হয়েছেন, আমি তাঁদের কথা ভাবছি।’ তিনি হামলায় হতাহত মানুষের স্বজনদের প্রতি সমবেদনা জানান।

হামলায় এখন পর্যন্ত ১৫ জনের আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এক টুইট বার্তায় ট্রুডো বলেন, সাস্কাচেওয়ানে আজকের হামলার ঘটনা ভয়াবহ এবং হৃদয়বিদারক। এই ভয়াবহ হামলায় আমি হতবাক ও বিধ্বস্ত। এই হামলার পেছনে দায়ীদের অবশ্যই বিচারের মুখোমুখি করা হবে। হতাহতদের পরিবারের প্রতি তিনি সমবেদনা জানিয়েছেন।

রেড ইন্ডিয়ান আদিবাসী প্রধান এলাকা জেমস স্মিথ ক্রি নেশন প্রদেশের মোট ১৩টি ভিন্ন ভিন্ন জায়গায় ছুরি নিয়ে হামলার ঘটনা ঘটেছে। শিকার আহত ও নিহত ব্যক্তিদের পাওয়া গেছে। দুই সন্দেহভাজন একটি প্রদেশের মোট ১৩ জায়গায় হামলা চালিয়েছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

পুলিশ ইতোমধ্যেই ৩১ বছর বয়সী ডেমিয়েন স্যান্ডারসন এবং ৩০ বছর বয়সী মাইলস স্যান্ডারসন নামে দুই সন্দেহভাজনের নাম ঘোষণা করেছে। তাদেরকে সশস্ত্র, পলাতক এবং বিপজ্জনক বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

রোববার স্থানীয় সময় সাড়ে ৫টার দিকে সাসকাচোয়ান প্রদেশের রাজধানী রেজিনা থেকে পুলিশের কাছে প্রথম জরুরি ফোন কল আসে। এরপর সাহায্য চেয়ে একের পর এক ফোন আসতে থাকে।

সন্দেহভাজনদের শেষবার রোববার দুপুরের খাবারের সময় রেজিনাতে দেখা গেছে। প্রদেশের বাসিন্দাদের নিরাপদ জায়গায় আশ্রয় নিতে বলা হয়েছে। বিশাল এলাকাজুড়ে ব্যাপক অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

পুলিশ এক টুইট বার্তায় বলেছে, নিরাপদ স্থান ছেড়ে কোথাও যাবেন না। কাউকে বাসায় ঢুকতে দেওয়ার আগে সাবধান হন।

বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি চৌকি স্থাপন করা হয়েছে। পুলিশ ভ্রমণকারীদের পরিচয়পত্র পরীক্ষা করছে। গাড়ির চালকদের অপরিচিত কাউকে গাড়িতে লিফট না দেওয়া জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

জেমস স্মিথ ক্রি নেশনে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। আদিবাসী সম্প্রদায় প্রধান এলাকাটিতে দুই হাজারের মতো বাসিন্দা রয়েছে।

সাস্কাচেওয়ান এবং এর পার্শ্ববর্তী ম্যানিটোবা ও আলবার্টা প্রদেশের সব মোবাইল ফোনে বিপজ্জনক ব্যক্তি বিষয়ক সতর্কতা পাঠানো হয়েছে। এই অঞ্চলটির আয়তন পুরো ইউরোপের অর্ধেকের মতো।

রোববার সন্ধ্যায় একটি সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ জানিয়েছে, আহত আরও ব্যক্তি থাকতে পারে যারা নিজেরাই হাসপাতালে গেছে। তাদেরকে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করার আহ্বান জানানো হয়েছে।

পুলিশ বলছে, হামলার শিকার কিছু ব্যক্তি ওই দুই সন্দেহভাজনের লক্ষ্যবস্তু ছিল। অন্যরা এলোমেলোভাবে আক্রমণের শিকার বলে মনে করা হচ্ছে।

যে জায়গায় হামলাগুলো হয়েছে সেগুলো কানাডার খুব শান্তিপূর্ণ গ্রামাঞ্চল। সেখানে এরকম হামলা পুরো দেশের মানুষকে বিস্মিত করেছে।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.