পেরুতে নির্বাচনের দাবিতে গণবিক্ষোভে নিহত ২, বন্ধ করা হল বিমানবন্দর

দক্ষিণ আমেরিকার দেশ পেরুতে সহিংস বিক্ষোভে দুই কিশোর নিহত ও চারজন আহত হয়েছেন। বিক্ষোভের জেরে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে দেশটির একটি বিমানবন্দর।

পার্লামেন্টে অভিশংসনের মুখে প্রেসিডেন্ট পদ থেকে ক্ষমতাচ্যুত হন পেদ্রো কাস্তিলো। ক্ষমতা হারানোর পর বুধবার তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। কাস্তিলো ক্ষমতা হারানোর পর দেশটির প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেন দিনা বলুয়ার্তে।

কাস্তিলোর ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পর থেকেই মূলত দেশটিতে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠানের দাবিতে বিক্ষোভ করছে তার অনুসারীরা। কাস্তিলোর মেয়াদ শেষ হবে ২০২৬ সালে। এই মেয়াদ শেষ না হওয়া পর্যন্ত বলুয়ার্তেকে ক্ষমতায় থাকার অনুমতি দেয়ার বিপক্ষে তারা।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় আন্দাহুয়াইলাস শহরে সহিংস বিক্ষোভে শনিবার ১৫ ও ১৮ বছর বয়সী দুই কিশোর নিহত হয়। এরপর সেখানকার আন্দাহুয়াইলাস বিমানবন্দর বন্ধ করে দেয়া হয়।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়া ছবিতে বিমানবন্দর থেকে ধোঁয়া উঠতে দেখা গেছে।

আপুরিম্যাক অঞ্চলের গভর্নর বালতাজার ল্যান্টারন বলেছেন, চারজন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। তাদের স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

পেরুর বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ বলেছে, শনিবার বিকেলের বিক্ষোভে বিমানবন্দরের ক্ষতি হয়েছে। বিক্ষোভকারীরা ভাঙচুর করে বিমানবন্দরে। তারা সেখানে আগুন ধরিয়ে দেয়।

গত বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার শত শত মানুষ দেশটির রাজধানী লিমায় বিক্ষোভ করেন। এরপর শনিবার আন্দাহুয়াইলাসে অন্তত তিন হাজার মানুষ বিক্ষোভ করে। এসময় কমপক্ষে ১৬ জন বিক্ষোভকারী এবং চার পুলিশ কর্মকর্তা আহত হয়েছেন বলে দেশটির ন্যায়পাল জানিয়েছেন।

সূত্রঃ রয়টার্স

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.