কম্বোডিয়ায় বিরোধীদলীয় নেতার ২৭ বছর জেল

কম্বোডিয়ার বিরোধীদলীয় নেতা কেম সোখাকে রাষ্ট্রদ্রোহের দায়ে দোষী সাব্যস্ত করে ২৭ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এই ২৭ বছর তিনি গৃহবন্দী থাকবেন।

সোখা বর্তমানে নিষিদ্ধ কম্বোডিয়ান ন্যাশনাল রেসকিউ পার্টির (সিএনআরপি) সাবেক প্রেসিডেন্ট। তাকে ২০১৭ সালে গ্রেফতার করা হয়েছিল।

আল জাজিরার খবরে বলা হয়, সোখাকে রাজনীতি এবং নির্বাচনে ভোট দেওয়া থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য নিষিদ্ধ করা হবে বলেও জানিয়েছেন নম পেন মিউনিসিপ্যাল ​​কোর্টের বিচারক।

কেম সোখাকে ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে তার বাড়িতে মধ্যরাতে অভিযান চালিয়ে ওয়ারেন্ট ছাড়াই গ্রেফতার করা হয়। এই ঘটনার পর সিএনআরপি দলটি বিলুপ্ত হয়ে যায়। দেশটির দীর্ঘদিনের শাসক ও প্রধানমন্ত্রী হুন সেনের সরকার দলটিকে নিষিদ্ধ করে।

কেম সোখাকে কম্বোডিয়ার ফৌজদারি কোডের ৪৪৩ অনুচ্ছেদের অধীনে ‘একটি বিদেশি শক্তির সঙ্গে মিলে ষড়যন্ত্র’ করার অভিযোগে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

এই বিচারকে রাজনৈতিকভাবে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে নিন্দা করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

গ্রেফতারের পর প্রত্যন্ত প্রাদেশিক কারাগারে সোখাকে আটক রাখা হয়েছিল। প্যারোলের মুক্তি পাওয়ার আগে বেশ কয়েক দফায় তার জামিন না মঞ্জুর করা হয়েছিল। প্যারোলে মুক্ত থাকা অবস্থায় তার বিদেশ ভ্রমন এবং রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে অংশ নেওয়ার অনুমতি ছিল না।

২০১৮ সালের জাতীয় নির্বাচনের আগে সিএনআরপি-এর উপর ক্র্যাকডাউন শুরু হয়। স্থানীয় নির্বাচনে দারুণ সাড়া ফেলেছিল সিēএনআরপি। সবাই প্রত্যাশা করছিল যে নির্বাচনে হুন সেনের ক্ষমতাসীন কম্বোডিয়ান পিপলস পার্টিকে শক্ত চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেবে কেম সোখার দল।

সূত্র: আল জাজিরা

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.