বিশ্ব মানবাধিকার দিবস আজ

আজ রোববার (১০ ডিসেম্বর) বিশ্ব মানবাধিকার দিবস। এবারের দিবসটির প্রতিপাদ্য- ‘সবার জন্য মর্যাদা, স্বাধীনতা ও ন্যায়বিচার’। দেশের বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠন মানববন্ধন ও আলোচনা সভাসহ নানা কর্মসূচির মাধ্যমে দিবসটি পালন করবে।

১৯৪৮ সালের এই দিনে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে মানবাধিকারের সর্বজনীন ঘোষণাপত্র গৃহীত হয়। পরে ১৯৫০ সালের ১০ ডিসেম্বর দিনটিকে জাতিসংঘ বিশ্ব মানবাধিকার দিবস হিসেবে ঘোষণা করে।

দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন। রাষ্ট্রপতি তার বাণীতে ফিলিস্তিনসহ বিশ্বের সব নির্যাতিত-নিপীড়িত মানুষের অধিকার রক্ষায় সোচ্চার হতে সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী তার বাণীতে বলেন, ‘পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা করার পর এদেশে মানবাধিকার বলে আর কিছু ছিল না। ১৯৯৬ সালে সরকার গঠনের পূর্বে আমরা এই বর্বরোচিত হত্যাকাণ্ডের বিচার চেয়ে মামলা করতে পারিনি। সরকার গঠনের পর সেই কালো আইন বাতিল করে দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় আমরাই প্রথম উদ্যোগ নিয়েছিলাম। এরপর থেকে আমরা সকল মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিচারের ব্যবস্থা করেছি। জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থা প্রতিষ্ঠা করেছি।’

‘সবার জন্য মর্যাদা, স্বাধীনতা ও ন্যায়বিচার’ প্রতিপাদ্যে দেশের বিভিন্ন মানবাধিকার ও রাজনৈতিক সংগঠন মানববন্ধন, আলোচনা সভাসহ নানা কর্মসূচির মাধ্যমে দিবসটি পালন করবে। দিবসটিকে সামনে রেখে দেশে মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় আইন ও সালিশ কেন্দ্র (আসক) বেশকিছু দাবি তুলে ধরেছে। গতকাল গণমাধ্যমে পাঠানো প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে সংস্থাটির নির্বাহী পরিচালক ফারুখ ফয়সল দাবিগুলো তুলে ধরেন।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.