ইয়েমেনে অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠানে বিমান হামলা, নিহত ১৪০

base_1475986734-3ইয়েমেনের রাজধানী সানায় হুতি নিয়ন্ত্রিত সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী গালাল আল রাবিশানের বাবার অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠানে বিমান হামলা চালানো হয়েছে। শনিবার (৮ অক্টোবর) সংঘটিত এ হামলায় এখন পর্যন্ত নিহতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে অন্তত ১৪০ জন। আহত হয়েছেন আরো অন্তত ৫ শতাধিক ব্যক্তি। জাতিসংঘ এ বিমান হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছে।

সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন যৌথ বাহিনী এ বিমান হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে হুতি সরকার। তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করেছে সৌদি প্রশাসন।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠানে বিমান থেকে পরপর কয়েকবার বোমা ফেলা হয়। এ সময় সেখানে শত শত বেসামরিক মানুষ উপস্থিত ছিল। এ বিমান হামলায় হুতি বিদ্রোহীদের বেশ কয়েকজন শীর্ষ সামরিক ও নিরাপত্তা কর্মকর্তা নিহত হয়েছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এ বিমান হামলার নিন্দা জানিয়েছেন ইয়েমেনে জাতিসংঘের মানবিক কার্যক্রমের সমন্বয়কারী জেমি ম্যাকগোল্ডরিক। এটাকে তিনি ‘লোমহর্ষক হামলা’ বলে বর্ণনা করেছেন। একইসাথে এ বিমান হামলার ঘটনায় দ্রুত তদন্তের আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

আন্তর্জাতিক রেডক্রস কমিটি (আইসিআরসি) জানিয়েছে, ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ সরিয়ে নিতে তারা আরো অন্তত তিনশটি ব্যাগ প্রস্তুত করেছে।

বিমান হামলার পর ঘটনাস্থলের পরিস্থিতির বর্ণনা দেন মুরাদ তৌফিক নামের একজন উদ্ধারকারী। তিনি ঘটনাস্থলকে ‘রক্তের হ্রদ’ বলে বর্ণনা করেছেন।

প্রসঙ্গত, ইয়েমেনে ২০১৪ সালে গৃহযুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে হাজারো বেসামরিক মানুষ নিহত হয়েছেন। দেশটির প্রায় ৩০ লাখ লোক গৃহহীন হয়েছেন। তবে সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন যৌথ বাহিনী দেশটির আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত সরকারের পক্ষ নিয়ে হুতি বিদ্রোহীদের টার্গেট করে বিমান হামলা শুরু করার পর থেকে নিহতের সংখ্যা আশঙ্কাজনক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে বলে বিভিন্ন মানবাধিকার সংস্থা অভিযোগ করেছে।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.