সানিকে ভারত ছাড়ার নির্দেশ

suyyভারতীয় বংশোদ্ভূত কানাডীয় নাগরিক বিতর্কিত পর্নো তারকা সানি লিওনকে ভারত ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে এটি কোন দাপ্তরিক চিঠির মাধ্যমে নয়। বলিউডেরই অভিনেত্রী রাখি সাওয়ান্ত তাকে ভারত থেকে বেরিয়ে যেতে বলেছেন।

নিজস্ব ওয়েবসাইটে যৌনতা ছড়ানো নিয়ে বেশ কিছু দিন ধরে আইনি জটিলতায় জর্জরিত সানি লিওন। এছাড়া তার অভিনীত ছবিগুলো নিয়েও কম সমালোচনার শিকার হচ্ছেন না তিনি। এ নিয়ে বেশ বিব্রতকর পরিস্থিতিতে রয়েছেন সানি।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে সানিকে উদ্দেশ্য করে রাখি বলেন, ”সানি লিওন আপনি ভারত থেকে বেরিয়ে যান। আমাদের ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি থেকে বেরিয়ে যান। আপনি বলিউড ছবির মান নিচের দিকে নামিয়ে দিচ্ছেন। আর সেই সাথে সামাজিক অবক্ষয়ও করছেন। তাই আপনার এ মুহূর্তে ভারত ছাড়া উচিত।”

এদিকে রাখির এমন কথায় চারদিকে নানা গুঞ্জন শুরু হয়েছে। ২০১০ সাল থেকে বলিউড ছবিতে বিচ্ছিন্ন তিনি। আইটেম গানেও নেই তিন বছর ধরে। দেশের বাইরে থেকে বলিউডে সানির ভাল অবস্থান করে নেয়াটা একেবারেই সহ্য করতে পারছেন না রাখি। তাই ঈর্ষাপরায়ণ হয়েই সানিকে দেশ ত্যাগ করার কথা বলে তিনি আলোচনায় আসতে চাইছেন বলে ধারণা করছেন অনেকে।

চলতি মাসের মাঝামাঝিতে সানি লিওনের বিরুদ্ধে নিজের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে অশ্লীলতার প্রসার ঘটিয়ে ভারতীয় সংস্কৃতি ও সমাজ ধ্বংসের অভিযোগে তার বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেন অঞ্জলি পালান নামে এক গৃহবধূ।

পুলিশ জানায়, সানির ওয়েবসাইটে আপত্তিকর কনটেন্ট পাওয়া গেছে। এই অপরাধের সর্বোচ্চ শাস্তি পাঁচ বছরের কারাদণ্ড কিংবা ১০ লাখ রুপি জরিমানা হতে পারে।

ভারতীয় বংশোদ্ভূত কানাডীয় এবং আমেরিকান নারী-ব্যবসায়ী, মডেল এবং পর্নোতারকা সানি লিওন। ম্যাক্সিম বিশ্বেসেরা ১০ পর্ণোতারকার একজন হিসেবে নির্বাচিত হন ২০১০ সালে তিনি।

তিনি স্বাধীন মূলধারার চলচ্চিত্র এবং টেলিভিশন অনুষ্ঠানে ভূমিকা পালন করেছেন। পরবর্তীতে বলিউডে আত্মপ্রকাশ ঘটান পূজা ভাটের জিসম ২ (২০১২) যৌনাবেদনময়ী থ্রিলার চলচ্চিত্রে এবং বর্তমানে তিনি কাজ করেন হিন্দি চলচ্চিত্রে।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.